COVID-19 টিকা

[ View information about COVID-19 in English ]

এই টিকা আপনাকে COVID-19 থেকে রক্ষা করে। আপনার বয়স যতই হোক না কেন, COVID-19 এর কারণে নানা জটিলতা এবং মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। আপনার ইতোমধ্যে COVID-19 হয়ে থাকলেও, টিকা নেয়া জরুরী কারণ এটি আপনার পুনরায় COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমায় এবং আপনার কাছ থেকে অন্যদের কাছে রোগটি ছড়ানো প্রতিরোধ করতে পারে।

সেই সাথে, টিকা নেয়ার ফলে আপনার চারপাশের মানুষরাও সুরক্ষা পেতে পারেন, বিশেষ করে যাদের টিকা নেয়ার উপায় নেই, যেমন শিশুরা। টিকাকরণ, সেই সাথে অন্যান্য প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা, আমাদেরকে এই COVID-19 সংক্রান্ত জনস্বাস্থ্যের জরুরী অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করতে পারে।

নিচে এই টিকাসমূহ, সেই সাথে এগুলো কিভাবে কাজ করে, কখন এবং কোথায় টিকা নিতে হবে, এবং টিকা নেয়ার পর আপনি কী আশা করতে পারেন সে সম্পর্কিত তথ্যগুলো দেয়া হল।

টিকা উৎপাদন এবং অনুমোদন

তৈরি ও পরীক্ষা

COVID-19 টিকাসমূহ উৎপাদনের ধাপগুলো অন্য সব টিকার মতই: এগুলোকে প্রথমে গবেষণাগারে তৈরি ও পরীক্ষা করা হয়েছে এবং তারপর আমেরিকার খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (Food and Drug Administration, FDA) এর নিবিড় পর্যবেক্ষণে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মাধ্যমে যাচাই করা হয়েছে।

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মধ্যে থাকে টিকাসমূহকে মানুষের উপর পরীক্ষা করে দেখা যে এটি নিরাপদ ও কার্যকর কিনা। COVID-19 টিকাসমূহকে ভিন্ন ভিন্ন লিঙ্গ, বয়স, জাতি ও গোষ্ঠীর হাজার হাজার মানুষের উপর পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে যারা স্বেচ্ছায় ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশ নিতে চেয়েছিলেন।

উৎপাদনের সময়রেখা

COVID-19 টিকাসমূহের উৎপাদনে অপ্রত্যাশিত পরিমাণের সম্পদ ব্যবহার করতে হয়েছে। 2020 এর বসন্ত থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত কয়েক বিলিয়ন ডলার খরচ করা হয়েছে এবং সারা বিশ্ব জুড়ে শত শত বিজ্ঞানী টিকাসমূহ উৎপাদনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বৈজ্ঞানিকরা অন্যান্য করোনাভাইরাসের জন্য ‎‎টিকার গবেষণা সমেত অন্যান্য ‎‎টিকা্ সংক্রান্ত বহু বছরের গবেষণাকে ভিত্তি হিসাবে ব্যবহার করেছেন।

ফেডারেল সরকার একই সময়ে তৈরি, পরীক্ষা এবং উৎপাদনের জন্য বিশেষ ফান্ডিংয়ের ব্যবস্থা করেছে। এর ফলে কোম্পানিগুলো টিকাসমূহ অনুমোদন পাওয়ার আগেই সেগুলো উৎপাদন শুরু করতে পেরেছে। ফেডারেল সরকার, স্টেট এবং স্থানীয় স্বাস্থ্য দপ্তর এবং স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারীরা মাসের পর মাস ধরে সংরক্ষণ, বণ্টন, সরবরাহ এবং অন্যান্য রসদের জন্য পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে চলেছেন। তাদের লক্ষ্য ছিল টিকাসমূহ ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়ার সাথে সাথে সেগুলোকে সরবরাহ এবং প্রদানের ব্যবস্থা করা।

জরুরী ব্যবহার অনুমোদন

একটি জরুরী অবস্থায়, FDA টিকাসমূহকে (এবং অন্যান্য চিকিৎসা ব্যবস্থাকে) জরুরী ব্যবহার অনুমোদন (Emergency Use Authorization, EUA) প্রদান করার মাধ্যমে ব্যবহারের অনুমতি দিতে পারে। Pfizer এবং Moderna উভয় টিকাকেই EUA প্রদান করা হয়েছে।

কোনো EUA জারি করা সমস্ত ‎‎টিকা অন্যান্য সমস্ত ‎‎টিকার মতোই একই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মধ্য দিয়ে যায়। FDA শুধু তখনই EUA প্রদান করতে পারে যখন রোগীদের জন্য টিকা গ্রহণের সুবিধাগুলো তাদের যে কোনো ঝুঁকির চাইতে বেশি হওয়ার সপক্ষে জোরালো প্রমাণ থাকে।

FDA এটাও আশা করে যে, যে সব উৎপাদনকারীর COVID-19 টিকাসমূহকে EUA এর আওতায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে তারা বাড়তি নিরাপত্তা ও কার্যকারীতা সংক্রান্ত তথ্য জোগাড়ের জন্য ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়ে যাবেন, এবং অনুমতির (লাইসেন্স) জন্য আবেদন করবেন।


টিকার নিরাপত্তা এবং কার্যকারিতা

নিরাপত্তার প্রমাণ ও যাচাই

অনুমতিপ্রাপ্ত টিকাগুলো ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে। এই ট্রায়ালগুলোতে হাজার হাজার স্বেচ্ছাসেবীর উপর টিকাগুলো প্রয়োগ করা হয়েছিল। পুরো প্রক্রিয়াটি FDA এবং অন্যান্য সংগঠনগুলো নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছে।

টিকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য:

  • FDA ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পরিকল্পনা ও কার্যপদ্ধতিগুলো পর্যালোচনা করে নিশ্চিত হয়েছে যে কার্যপদ্ধতিগুলো সর্বোচ্চ বৈজ্ঞানিক ও নৈতিক মান অনুসারে তৈরি।

  • অন্যান্য দলসমূহের মধ্যে, বহিরাগত বিশেষজ্ঞদের (চিকিৎসক, নীতিশাস্ত্রজ্ঞ, পরিসংখ্যানবিদ, রোগীদের আইনজীবী) দ্বারা গঠিত তথ্য নিরাপত্তা নজরদারি বোর্ডের মাধ্যমে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালসমূহকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে।

  • FDA এর বিজ্ঞানী এবং পেশাদার চিকিৎসকরা সকল উপলভ্য তথ্য বিশ্লেষণ করে নির্ধারণ করেছেন যে টিকাসমূহকে অনুমোদন দেওয়া হবে কিনা।

  • টিকা প্রদানকালীন সময়েও বেশ কিছু ফেডারেল প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন টিকার নিরাপত্তার উপর নজরদারী করা অব্যাহত রেখেছে।

অ্যালার্জিজনিত/প্রতিকূল প্রতিক্রিয়া চিহ্নিতকরণ

স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য টিকাকরণের পর নির্দিষ্ট কিছু প্রতিকূল প্রতিক্রিয়া দেখা দিলে তা FDA ও CDC পরিচালিত টিকাজনিত প্রতিকূল পরিস্থিতি রিপোর্টিং সিস্টেম (Vaccine Adverse Event Reporting System, VAERS) নামক একটি জাতীয় রিপোর্টিং সিস্টেমের কাছে জানানো বাধ্যতামূলক।

এছাড়া জনগণ নিজে থেকেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা অন্যান্য প্রতিক্রিয়ার কথা VAERS অনলাইন এ বা 800-822-7967 ফোন করে জানাতে পারেন।

এছাড়া CDC V-safe নামক একটি স্মার্টফোন অ্যাপ তৈরি করেছে যা ব্যবহার করে জনগণ টিকার প্রতিক্রিয়ার কথা জানাতে পারেন।

কার্যকারিতা

উভয় টিকাই অত্যন্ত কার্যকর।

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে, অংশগ্রহণকারীদেরকে COVID-19 এ রক্ষা করতে Pfizer টিকাটি 95% কার্যকারিতা দেখিয়েছে এবং Moderna টিকাটি 94% কার্যকারিতা দেখিয়েছে। এর অর্থ হল ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালগুলোর সময় টিকা গ্রহণ করা প্রতি 10 জনের মধ্যে নয়জন ব্যক্তি রোগটি থেকে সুরক্ষিত ছিল।

দুটি ‎‎টিকাই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অন্তর্ভুক্ত সমস্ত লিঙ্গ, বয়স, জাতি এবং গোষ্ঠীভেদে নির্বিশেষে নিরাপদ এবং কার্যকর বলে দেখা গেছে।

বেল'স পলসি

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সময় যে হাজার হাজার ব্যক্তি এই দুটি টিকার একটি গ্রহণ করেছেন, তাদের মধ্যে কয়েকজনের বেল'স পলসি (মুখমণ্ডলের পক্ষাঘাত) হতে দেখা গেছে। তবে, FDA এই আক্রান্তের ঘটনাগুলো টিকাসমূহের কারণে ঘটেছে বলে রায় দেয়নি। সাধারণ জনসংখ্যার মধ্যে বেল'স পলসির হার যেমনটা আশা করা যায়, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সময় বেল'স পলসির হার তার চেয়ে বেশি ছিল না।

যাদের ইতোমধ্যে বেল'স পলসি হওয়ার ইতিহাস আছে তারা টিকা নিতে পারবেন। যদি আপনার বেল'স পলসি হয়ে থাকে এবং আপনার টিকাকরণ সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন থাকে, আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে কথা বলুন।

গুইয়েন-ব্যারে

Pfizer বা Moderna এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালসমূহে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে টিকা গ্রহণ করার পর গুইয়েন-ব্যারে ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার কোনো ঘটনার কথা জানা যায়নি। যারা ইতোমধ্যে গুইয়েন-ব্যারে ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়েছেন তারা টিকা নিতে পারবেন।

যদি আপনার গুইয়েন-ব্যারে হয়ে থাকে এবং আপনার টিকাকরণ সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন থাকে, আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে কথা বলুন।

উর্বরতা

যে সব নারীরা COVID-19 এ ইতোমধ্যেই আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে অনুর্বরতা সংক্রান্ত কোনো সমস্যা হয়েছে বলে দেখা যায়নি, তাই এটিকে টিকার কোনো অসুবিধা বলে মনে করা হচ্ছে না। যারা বর্তমানে গর্ভধারণের চেষ্টা করছেন অথবা যারা ভবিষ্যতে চেষ্টা করার পরিকল্পনা করছেন তারা টিকা নিতে পারবেন। ব্যবহারের অনুমতি দেওয়ার আগে এবং পরে টিকাসমূহকে পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা করা হয়। COVID-19 টিকা, বা অন্য যে কোনো টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসাবে উর্বরতার সমস্যা দেখা দিতে পারে এর কোনো প্রমাণ নেই।

অনুর্বরতার দাবীগুলোর ভিত্তি তৈরি হয়েছে বিজ্ঞানকে ভুল বোঝার ফলে। COVID-19 টিকা — অন্যান্য অনেক টিকার মতই — কাজ করে আমাদের শরীরকে ভাইরাসের সাথে লড়াই করার জন্য অ্যান্টিবডি তৈরির শিক্ষা দেওয়ার মাধ্যমে। অনুর্বরতা সম্পর্কিত দুশ্চিন্তাগুলো এই ধারণার উপর ভিত্তি করে তৈরি যে অ্যান্টিবডিগুলো ভ্রূণের অমরায় একটি প্রোটিনকে আক্রমণ করবে যার সাথে COVID-19 ভাইরাস পাওয়া যায় এমন একটি প্রোটিনের মিল আছে। তবে, এই দুটি প্রোটিনই অত্যন্ত আলাদা, এবং আমাদের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা এদের পার্থক্য ধরার মত যথেষ্ট বুদ্ধিমান। এই অ্যান্টিবডিগুলো যে গর্ভাবস্থায় বা ভ্রূণের অমরা তৈরিতে কোনো অসুবিধার সৃষ্টি করবে তার সপক্ষে বর্তমানে কোনো প্রমাণ নেই।

টিকার ফলে COVID-19 হতে পারে না

Pfizer বা Moderna টিকা কোনোটিতেই COVID-19 সৃষ্টিকারী ভাইরাস নেই। টিকার থেকে COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়া সম্ভব নয়।


টিকার উপাদানসমূহ এবং তারা যেভাবে কাজ করে

মেসেঞ্জার আরএনএ (mRNA) টিকাসমূহ

Pfizer এবং Moderna টিকার উভয়ই হচ্ছে মেসেঞ্জার আরএনএ (mRNA) টিকা। mRNA হচ্ছে একটি অণু যাতে প্রোটিন তৈরির নীলনকশা দেওয়া থাকে। এগুলোই প্রথম mRNA টিকা যেগুলোর অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, কিন্তু 30 বছরেরও বেশি সময় ধরে এই প্রযুক্তির উপর গবেষণা চলছে।

দেখে নিন কীভাবে mRNA ‎‎টিকা কাজ করে:

  1. যে ভাইরাসটি COVID-19 এর কারণ তার একটি অংশ যে প্রোটিন তা কীভাবে তৈরি করতে হয় তার নির্দেশনা নিয়ে mRNA অণুগুলো শরীরে প্রবেশ করে।

  2. উৎপন্ন প্রোটিনগুলো শরীরে অ্যান্টিবডি (বিশেষ প্রোটিনসমূহ যা একটি নির্দিষ্ট সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে) সৃষ্টি এবং অন্যান্য প্রতিরোধ গড়ে তুলতে নির্দেশ দেয়।

  3. তারপর mRNA ভেঙ্গে যায় এবং শরীর সেটিকে নষ্ট করে ফেলে।

  4. একজন ব্যক্তি যদি টিকা গ্রহণ করার পর COVID-19 দ্বারা সংক্রমিত হয়, তার শরীর ভাইরাসটিকে চিনতে পারবে এবং এর মোকাবেলা করার জন্য অ্যান্টিবডি উৎপাদন ও অন্যান্য প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

মোট কথা, mRNA হচ্ছে আপনার শরীরের মধ্যে পাঠানো একটি ইমেইল যেখানে ভাইরাসটিকে কিভাবে চিনতে হবে ও মোকাবেলা করতে হবে তার নির্দেশনা আছে। আপনার শরীর সেই নির্দেশনাগুলো ব্যবহার করে এবং তারপর ইমেইলটিকে সম্পূর্ণভাবে মুছে ফেলে।

mRNA কোনো ব্যক্তির DNA-কে প্রভাবিত করে না অথবা তার সাথে মিথষ্ক্রিয়া করে না।

উপাদানসমূহ

mRNA ছাড়া, টিকাগুলোতে কেবল নিম্নলিখিত ধরনের উপাদানসমূহ রয়েছে:

  • লিপিডসমূহ: লিপিড হচ্ছে চর্বির কণা যা পানিতে দ্রবীভূত হয় না। এগুলো mRNA কে ঘিরে রাখে এবং সুরক্ষা দেয়, যাতে এটি আপনার কোষের অভ্যন্তরে পৌছানোর আগেই ধ্বংস হয়ে না যায়। এখানে ব্যবহৃত একটি লিপিডের উদাহারণ হচ্ছে পলিইথিলিন গ্লাইকল।

  • লবণ, এসিটিক এসিড এবং এমিনসমূহ: এই সবই ব্যবহার করা হয় টিকার pH (অম্লতার মাত্রা) কে আপনার দেহের pH এর সাথে সমান রাখার মাধ্যমে আপনার কোষসমূহকে রক্ষা করার জন্য। Pfizer এর টিকাটিতে খাওয়ার লবণসহ চার ধরনের লবণ রয়েছে। Moderna এর টিকাটিতে রয়েছে এসিটিক এসিড (যে ধরনের এসিড ভিনেগারে থাকে), একটি লবণ এবং অ্যামোনিয়া থেকে পাওয়া দুটি জৈব যৌগ যা অ্যামিন নামে পরিচিত।

  • সুগার: সুগারের কাজ হচ্ছে লিপিডগুলোকে পরস্পরের সাথে অথবা টিকার ভায়ালের অভ্যন্তরের দেয়ালের সাথে আটকে যাওয়া থেকে বিরত রাখা।

এই টিকায় যেগুলো নেই সেগুলো হল:

  • অ্যান্টিবায়োটিক
  • রক্তজাত পণ্যসমূহ
  • DNA
  • ভ্রূণের টিস্যু
  • জেলাটিন
  • গ্লুটেন
  • পারদ
  • মাইক্রোচিপ
  • শুকর বা অন্য কোনো প্রাণিজ পণ্য
  • যে ভাইরাসটি COVID-19 এর কারণ

Pfizer এর টিকা (PDF) এবং Moderna ‎‎টিকা (PDF) তে থাকা উপাকরণগুলোর পূর্ণাঙ্গ তালিকা দেখে নিন।

টিকাগুলো কতটা সময় ধরে কাজ করে

টিকাসমূহ লোকজনকে COVID-19 থেকে কত সময় ধরে রক্ষা করবে তা আমরা এখনও জানি না। হতে পারে যে বছরে একটি করে টিকা নিতে হবে, যেমন ফ্লু টিকার ক্ষেত্রে হয়, অথবা একটি বাড়তি টিকা বা বুস্টার টিকার প্রয়োজন হবে, যেমন টিটেনাসের টিকার ক্ষেত্রে হয়। এটাও হতে পারে যে প্রথম দুটি ডোজের পর আর কোনো অতিরিক্ত টিকার দরকার হবে না।

চলমান গবেষণা এবং সময় আমাদের বলে দেবে যে টিকার সুরক্ষা কত দিন স্থায়ী হবে এবং লোকজনকে বাড়তি ডোজ নিতে হবে কিনা। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারীদের উপর পর্যবেক্ষণ জারী রাখা হবে, এবং বিশ্ব জুড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষকে টিকা দেওয়ার মাধ্যমে সময়ের সাথে সাথে আমরা আরো জানতে পারব।

রোগ সংক্রমণের উপর প্রভাব

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালসমূহে দেখা গেছে যে Pfizer এবং Moderna উভয় টিকাই COVID-19 এর লক্ষণসমূহ প্রতিরোধে এবং COVID-19 এর ফলে সৃষ্ট গুরুতর অসুস্থতা প্রতিরোধে কার্যকর।

এই টিকাগুলো লোকজনকে ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়া এবং তা ছড়ানো থেকে প্রতিরোধ করে কিনা তা দেখার জন্য আরো গবেষণার প্রয়োজন।

সম্প্রদায়ব্যাপী অনাক্রম্যতা

যখন একটি জনগোষ্ঠীতে কোনো সংক্রামক রোগের বিপরীতে যথেষ্ট সংখ্যক মানুষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা (সুরক্ষা) অর্জন করার ফলে সেই রোগ আর ছড়িয়ে পড়তে পারে না তখন তাকে সম্প্রদায়ব্যাপী অনাক্রম্যতা বলে। এর ফলে, এমনকি যাদের টিকা দেওয়া হয়নি তাদের ক্ষেত্রেও সংক্রমণের ঝুঁকি কমে যায়। একটি জনগোষ্ঠীতে যত শতাংশ মানুষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অর্জন করার মাধ্যমে সম্প্রদায়ব্যাপী অনাক্রম্যতা সৃষ্টি হয় সেটি ভিন্ন ভিন্ন রোগের জন্য আলাদা হতে পারে।

COVID-19 এর ক্ষেত্রে, বিশেষজ্ঞরা এখনও জানেন না সম্প্রদায়ব্যাপী অনাক্রম্যতা অর্জন করার জন্য কত শতাংশ জনগণকে টিকা দিতে হবে। তবে, আমরা সম্প্রদায়ব্যাপী অনাক্রম্যতা অর্জন করার আগেই, প্রচুর মানুষ যদি টিকা গ্রহণ করেন তবে তা COVID-19 এর কারণে অসুস্থ হয়ে পড়া এবং হাসপাতালে ভর্তি হওয়া বা মারা যাওয়া মানুষের সংখ্যা কমাবে।

ভাইরাসের নতুন রূপভেদ/স্ট্রেইন

একটি ভাইরাসের জন্য সময়ের সাথে সাথে মিউটেট (পরিবর্তিত হওয়া) করা এবং এর ফলে নতুন রূপভেদের উদয় হওয়া স্বাভাবিক। COVID-19 হয় যে ভাইরাসের কারণে তার কয়েকটি রূপভেদ সনাক্ত করা গেছে। কিছু রূপভেদ অন্যগুলোর চাইতে অপেক্ষাকৃত দ্রুত ও সহজে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে মনে হচ্ছে, যার ফলে আরো COVID-19 এর ঘটনা দেখা দিতে পারে।

আশা করা হচ্ছে যে টিকাসমূহ এই উদীয়মান রূপভেদগুলোর বিরুদ্ধে সুরক্ষা দেবে, যদিও তথ্যগুলো একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ের। এই রূপভেদগুলো সম্পর্কে এবং তারা কিভাবে টিকার উপর প্রভাব ফেলে তা জানতে বিজ্ঞানীরা কাজ করে যাচ্ছেন।


টিকা গ্রহণের যোগ্যতা

বর্তমানে যারা যোগ্য

COVID-19 টিকা সম্ভবত বেশির ভাগ নিউ ইয়র্কবাসীদের কাছে 2021 সালের মাঝামাঝি উপলভ্য হবে। যতক্ষণ না যথেষ্ট মজুদ উপলভ্য হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত যাদের COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়া বা COVID-19 এর ফলে গুরুতর অসুস্থতার শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি তাদেরকে টিকা গ্রহণের অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।

নিউ ইয়র্ক স্টেট নির্ধারণ করছে যে কোন গোষ্ঠীগুলোকে অগ্রাধিকার দেওয়া যায়, এবং কোন সময়সূচী অনুসারে পুরো স্টেটে টিকা বিতরণ করা হবে। টিকাকরণ কর্মসূচী সম্পর্কে CDC উপদেষ্টা কমিটির নির্দেশনা অনুসারে এই অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।

বর্তমানে যারা টিকা পাওয়ার জন্য উপযুক্ত তাদের একটি সম্পূর্ণ তালিকা পেতে, ভিজিট করুন "COVID-19: Vaccine Eligibility" (টিকা গ্রহণের যোগ্যতা)।

অভিবাসন অবস্থাতে কিছু আসে যায় না

অভিবাসন অবস্থা নির্বিশেষে সকলের জন্য COVID-19 টিকা উপলভ্য। আপনার অভিবাসন অবস্থা কী তাতে আমাদের কিছু আসে যায় না এবং টিকাদানের স্থানে আপনাকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হবে না।

COVID-19 টিকা পাওয়া পাবলিক চার্জ রুলের অধীনে কোনো গণ সুবিধা নয়। টিকা গ্রহণ করার ফলে আপনার বা আপনার পরিবারের অভিবাসন আবেদনের উপর কোনো খারাপ প্রভাব পড়বে না।

বয়সের সময়সীমা এবং শিশুদের জন্য উপলভ্যতা

16 বছর এবং তার উর্ধ্ববয়সীদের টিকা দেওয়া যাবে।

16 থেকে 17 বছর বয়সী ব্যক্তিরা শুধু Pfizer এর টিকাটি নিতে পারবে, যেহেতু Moderna এর টিকাটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে কেবলমাত্র 18 বছর এবং তার উর্ধ্ববয়সীদের জন্য। 16 এবং 17 বছর বয়সী ব্যক্তিদের টিকা গ্রহণ করার জন্য শিশু সম্মতি এবং অভিভাবকের অনুমতির প্রয়োজন।

শিশুদের জন্য তাদের টিকাগুলো নিরাপদ কিনা এটা দেখার জন্য Pfizer এবং Moderna সম্প্রতি গবেষণা শুরু করেছে। যদি একটি টিকা শিশুদের জন্য নিরাপদ ও কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়, তাহলে FDA শিশুদের ক্ষেত্রে এটি ব্যবহারের অনুমতি দিতে পারে। 2021 এর মধ্য থেকে শেষ নাগাদের মধ্যেই এটি ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে।


রোগের ইতিহাস ও চিকিৎসাজনিত বিবেচনাসমূহ

অ্যালার্জিসমূহ

বেশিরভাগ অ্যালার্জিই COVID-19 টিকা গ্রহণের জন্য কোনো দুশ্চিন্তার কারণ নয়। আপনার যদি এমন কোনো অ্যালার্জি থাকে যা টিকা বা ইনজেকশনের মাধ্যমে গ্রহণীয় ওষুধের প্রতি অ্যালার্জির মধ্যে পড়ে না — যেমন খাবার, অ্যান্টিবায়োটিক বা অন্য কোনো মুখে খাওয়ার ওষুধ, পোষা প্রাণীর ত্বকের খুশকি, বিষ, ডাস্ট মাইট, রেণু, ছত্রাক, সিগারেটের ধোঁয়া, বা ল্যাটেক্সের প্রতি অ্যালার্জি — বা আপনার পরিবারে যদি অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়ার ইতিহাস থাকে তবুও আপনি টিকা নিতে পারবেন।

যদি আপনার কোনো কিছুর প্রতি গুরুতর অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়ার (যেমন অ্যানাফাইলাক্সিস) ইতিহাস থাকে, তাহলে টিকা প্রদানকারীকে জানান যাতে তারা আপনার প্রতি নিবিড়ভাবে লক্ষ্য রাখতে পারেন।

টিকাপ্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় নিম্নলিখিত অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়ার ইতিহাসগুলো মনে রাখা জরুরী:

  • যদি কোনো স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী আপনার মধ্যে mRNA টিকার কোনো উপাদানের (পলিইথিলিন গ্লাইকল বা পলিসরবেটসহ) প্রতি যে কোনো মাত্রার একটি তাৎক্ষণিক অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া সনাক্ত করে, আপনার সেই টিকাটি নেয়া উচিত হবে না।

  • যদি কোন স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী আপনার মধ্যে প্রথম COVID-19 শট নেয়ার পর যে কোনো মাত্রার একটি তাৎক্ষণিক অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া সনাক্ত করে, আপনার দ্বিতীয় শটটি নেয়া উচিত হবে না। আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী আপনাকে বাড়তি সেবা বা পরামর্শের জন্য কোনো অ্যালার্জি এবং রোগপ্রতিরোধ বিশেষজ্ঞের কাছে পাঠাতে পারে।

  • আপনার যদি আগে কখনও ভিন্ন কোনো টিকা বা ইনজেকশনের সাহায্যে নেয়া ওষুধের প্রতি অ্যালার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া হয়ে থাকে, তাহলে টিকা নেয়ার আগে আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে কথা বলুন। যদি আপনি টিকা নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন, যিনি আপনাকে ইনজেকশন দিচ্ছেন তাকে জানান যাতে তারা পরে আপনাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখতে পারেন।

বর্তমানে COVID-19 এ আক্রান্ত আছেন যারা

আপনি যদি জানেন যে আপনার বর্তমানে COVID-19 আছে বা COVID-19 এর লক্ষণগুলো আছে, তাহলে আপনার উচিত হবে সুস্থ হয়ে ওঠা এবং বিচ্ছিন্ন থাকার সময় সম্পূর্ণ করা যাতে আপনি সংক্রামক থাকা অবস্থায় টিকাদান কেন্দ্রে উপস্থিত অন্যদের আক্রান্ত না করেন।

এর অর্থ হচ্ছে নিচের সবগুলো ব্যাপার সত্যি হলে আপনার টিকা নেয়া উচিত হবে না:

  • লক্ষণসমূহ দেখা দেয়ার পর কমপক্ষে 10 দিন পার হয়েছে (অথবা, আপনার যদি কখনও লক্ষণ দেখা না দেয়, তাহলে আপনি পরীক্ষা করানোর পর 10 দিন পার হয়েছে)
  • গত 24 ঘণ্টায় জ্বর কমানোর ওষুধ না খেয়ে আপনার জ্বর আসেনি।
  • যদি আপনার লক্ষণ দেখা দিয়ে থাকে, সাধারণভাবে সেই লক্ষণগুলোর উন্নতি হয়েছে।

আগে যারা COVID-19 এ আক্রান্ত হয়েছিলেন

COVID-19 এ একাধিকবারও আক্রান্ত হওয়া সম্ভব। তাই আপনার যদি আগে COVID-19 হয়েও থাকে, আপনার উচিত হবে টিকা নেয়া। তাছাড়া, এই টিকা নিরাপদ এবং আপনার দেহে ইতোমধ্যেই যে সুরক্ষা তৈরি হয়েছে তাকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে পারে।

COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়ার ফলে যে একজন মানুষের দেহে টিকার প্রতি কোনো খারাপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেবে এর কোনো প্রমাণ নেই।

সাম্প্রতিককালে COVID-19 এর সংস্পর্শে আসা

যদি আপনি সাম্প্রতিক সময়ে এমন কারও ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে আসেন যার COVID-19 আছে (24-ঘন্টা সময়ের মধ্যে কমপক্ষে 10 মিনিটের জন্য 6 ফুটের মধ্যে থাকা), আপনার উচিত হবে টিকা নেয়ার আগে শেষবার সংস্পর্শে আসার পর কমপক্ষে 10 দিনের জন্য কোয়ারান্টাইনে থাকা।

অন্যান্য টিকাকরণসমূহ

অন্য কোনো টিকা নেয়ার কমপক্ষে 14 দিন আগে বা পরে আপনার COVID-19 টিকা নেয়া উচিত।

সবার উচিত একটি ফ্লু এর টিকা এবং একটি COVID-19 টিকা নেয়া।

গর্ভবতী হওয়া বা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো

যারা গর্ভবতী অবস্থায় আছেন বা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন তারাও টিকা গ্রহণ করতে পারেন।

গর্ভবতীদের ক্ষেত্রে COVID-19 টিকার নিরাপত্তা সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য নেই, কারণ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে গর্ভবতীদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি, শুধু তারা ছাড়া যারা নিজেদের গর্ভধারণ সম্পর্কে জানতেন না অথবা পরবর্তীতে গর্ভবতী হয়েছিলেন।

একই ভাবে, যারা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছিলেন তাদেরও ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। তবে, তথ্য থেকে ধরা যায় যে COVID-19 বুকের দুধ থেকে ছড়ায় না, এবং বুকের দুধ পানরত শিশুর জন্য mRNA টিকাসমূহ কোনো ঝুঁকির কারণ হবে বলে মনে হয় না।

আপনি যদি গর্ভধারণের জন্য চেষ্টা করা অবস্থায় থাকেন, আপনি টিকা গ্রহণ করতে পারেন এবং টিকা নেয়ার পর আপনার গর্ভধারণ এড়িয়ে চলার প্রয়োজন নেই।

আপনি যদি গর্ভবতী হন অথবা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান, তাহলে টিকাগ্রহণ সম্পর্কে আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে পরামর্শ করুন।

অটোইমিউন রোগ বা স্বতঃঅনাক্রম্য রোগ/দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা এবং অন্তর্নিহিত অবস্থাসমূহ

যাদের অটোইমিউন রোগ আছে বা অন্য কোনোভাবে দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অধিকারী (যেমন ক্যান্সারের চিকিৎসা বা অন্য কোনো ওষুধের কারণে) তারা টিকা গ্রহণ করতে পারেন। তবে, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অধিকারী ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি, তাই এদের জন্য টিকার নিরাপত্তা বা কার্যকারিতা সম্পর্কে কোনো তথ্য নেই।

সাধারণভাবে, অন্তর্নিহিত দীর্ঘকালীন রোগ এবং অন্যান্য অবস্থার অধিকারী ব্যক্তিরা টিকা নিতে পারেন। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অন্তর্ভুক্ত অনেকেরই অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্যগত অবস্থা ছিল এবং তাদের কোনো অসুবিধা চিহ্নিত করা হয়নি।

আপনার যদি অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্যগত অবস্থা নিয়ে দুশ্চিন্তা থাকে, বা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়, আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে টিকা গ্রহণের ব্যাপারে কথা বলুন।


টিকাকরণ করানো

স্থানসমূহ

কিছু ব্যক্তি, যেমন বহু স্বাস্থ্যসেবা কর্মী এবং প্রাথমিক সাড়াদানকারীগণ, তাদের নিয়োগকর্তাদের মারফত টিকা নিতে পারেন। যারা একটি দলবদ্ধ আবাসন কেন্দ্রে, যেমন নার্সিং হোমে, বাস করেন বা কাজ করেন তারা সেখানেই টিকা নিতে পারেন।

এছাড়া কিছু হাসপাতাল, কমিউনিটি ক্লিনিক ও ফার্মেসি, এবং শহর জুড়ে সিটি-পরিচালিত টিকাদান কেন্দ্রসমূহেও টিকাগুলো পাওয়া যাচ্ছে। সকল সিটি-পরিচালিত কেন্দ্রসহ অনেক কেন্দ্রেই অ্যাপয়েন্টমেন্টের প্রয়োজন। অ্যাপয়েন্টমেন্টসমূহ টিকার সরবরাহের উপর নির্ভর করে সীমিত ভিত্তিতে দেয়া হচ্ছে, তাই আপনি কোনোটি খোলা না পেলে বারবার দেখতে থাকুন।

একটি টিকাদান কেন্দ্র খুঁজে পেতে:

  • "NYC Vaccine Finder" (NYC টিকাদান কেন্দ্র অনুসন্ধান) ভিজিট করুন। আপনি আপনার ঠিকানা, জিপ কোড বা আপনার বর্তমান অবস্থান ব্যবহার করে খুঁজতে পারেন।

  • যদি আপনার কোনো সিটি-পরিচালিত টিকাদান কেন্দ্রে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে সাহায্যের প্রয়োজন হয়, 877-829-4692 নম্বরে ফোন করুন এবং যখন বলা হবে তখন 1 চাপুন।

আপনি বর্তমানে টিকা নেয়ার যোগ্য না হলে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেবেন না।

টিকা গ্রহণের পূর্বে সনাক্তকরণ/অ্যান্টিবডি পরীক্ষার প্রয়োজন নেই

টিকা নেয়ার পূর্বে আপনার COVID-19 সংক্রমণের জন্য পরীক্ষা করানোর প্রয়োজন নেই।

সেই সাথে আপনার অ্যান্টিবডি পরীক্ষারও দরকার নেই, যেখানে দেখা যায় যে আপনার অতীতে কখনও COVID-19 হয়েছে নাকি হয়নি। যাদের অতীতে COVID-19 হয়েছিল তাদের যদি অ্যান্টিবডির পরীক্ষায় পজিটিভও আসে তবু তাদের টিকা নেয়া উচিত। COVID-19 এ পুনরায় আক্রান্ত হওয়া সম্ভব এবং টিকা গ্রহণ করলে তা আপনার স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে অধিক শক্তিশালী করতে পারে।

টিকা গ্রহণের জন্য কোনো মূল্য পরিশোধ বা সোশাল সিকিউরিটি নম্বরের প্রয়োজন নেই

এই টিকা সকলকে বিনা মূল্যে দেয়া হচ্ছে। টিকা পাওয়ার জন্য আপনাকে সোশাল সিকিউরিটি নম্বর দিতে দিতে হবে না।

আপনাকে কোনো ফি দিতে হবে না, এমনকি আপনার স্বাস্থ্য বীমা না থাকলেও। আপনার যদি বীমা থাকে, আপনার বীমা কার্ডটি নিয়ে আসুন। না। আপনার বীমা কোম্পানিকে বিল করা হতে পারে কিন্তু টিকাটির জন্য আপনাকে কোনো কো-পে বা অন্য কোনো ফি দিতে হবে না।

যদি কেউ আপনার কাছ থেকে ফি নিতে চেষ্টা করে বা আপনার ক্রেডিট কার্ডের তথ্য চায়, অথবা তারা আপনার সোশাল সিকিউরিটি নম্বর চায়, তাহলে এটা সম্ভবত কোনো ধাপ্পাবাজি এবং আপনার উচিত টিকা নেয়ার জন্য অন্য কোথাও যাওয়া।

টিকা সংক্রান্ত ধোঁকাবাজি বা অপব্যবহার সম্পর্কে অনলাইনে NYS অ্যাটর্নি জেনারেল জানান ("File a Complaint" (একটি অভিযোগ দাখিল করুন) নির্বাচন করুন)। এছাড়া আপনি 833-829-7226 নম্বরে ফোন করতে পারেন অথবা stopvaxfraud@health.ny.gov ঠিকানায় ইমেইল করতে পারেন।

যোগ্যতার প্রমাণ

টিকা গ্রহণের সময় আপনাকে যোগ্যতার প্রমাণ দেখাতে হবে।

টিকা গ্রহণ করার আগে, আপনাকে অনলাইনে NYS COVID-19 টিকাদান ফর্ম পূরণ করতে হবে, যেখানে টিকা গ্রহনের যোগ্যতা সম্পর্কে একটি স্ব-সত্যায়নের অংশ আছে।

আপনি যে টিকা পাওয়ার যোগ্য তা প্রমাণের জন্য আপনাকে অবশ্যই যেগুলো করতে হবে সেগুলো সম্পর্কে আরো জানুন

আপনার অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য প্রস্তুত হওয়া

টিকা নেয়ার আগে এমন বিশেষ কিছু নেই যা আপনাকে করতে হবে। আপনার যদি COVID-19 এর লক্ষণ দেখা দেয় বা অসুস্থ বোধ করেন তাহলে আপনার অ্যাপয়েন্টমেন্ট পুনঃসূচিত করুন।

আপনার অ্যাপয়েন্টমেন্টের সময় একটি মুখের আবরণ পরতে এবং নিচের জিনিসগুলো আনতে ভুলবেন না:

  • একটি বীমা কার্ড যদি আপনার থাকে
  • আপনার টিকা গ্রহণের যোগ্যতা প্রমাণ করে এমন কাগজপত্র (উপরে বর্ণিত)
  • আপনার টিকা কার্ড (শুধুমাত্র দ্বিতীয় ডোজের অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য)

টিকা যেভাবে দেয়া হয়

COVID-19 টিকাসমূহ হচ্ছে পেশির মধ্যে দেয়ার টিকা। ফ্লু, হাম, টিটেনাস এবং অন্য অনেক টিকার মত এগুলোকেও পেশির মধ্যে একটি ইনজেকশনের সাহায্যে দেয়া হয়। Pfizer এবং Moderna উভয় প্রকার টিকার ক্ষেত্রেই কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে দুটি ডোজ দেয়া হয়।

একটি টিকা বেছে নেয়া

Pfizer এবং Moderna টিকাগুলো একই রকমের এবং উভয়ই নিরাপদ ও কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। দুটিই হচ্ছে mRNA টিকা, একই ধরণের উপকরণ দিয়ে তৈরি, উভয়েরই দুটি করে ডোজ দরকার হয় এবং হালকা থেকে মাঝারি ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে।

টিকাদুটির মধ্যে একটি প্রধান পার্থক্য হচ্ছে Pfizer টিকাটি 16 বছর এবং তার উর্ধ্ববয়সীদের জন্য অনুমোদিত হয়েছে, যেখানে মডার্না টিকাটি অনুমোদিত হয়েছে 18 বছর এবং তার উর্ধ্ববয়সীদের জন্য। এটি ছাড়া, টিকাদুটির অন্যান্য প্রধান পার্থক্যগুলো রয়েছে মূলত এগুলোকে কিভাবে সংরক্ষণ ও সরবরাহ করা হবে তার ভিতরে। টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে সাধারণত এই দুটির মধ্যে কেবল একটি টিকা উপলভ্য থাকবে।

দ্বিতীয় ডোজ নেয়া

উভয় ডোজ একই টিকার হতে হবে। আপনি Pfizer টিকা পেলে, প্রথম ডোজ নেওয়ার 21 থেকে 42 দিন পরে আপনার Pfizer টিকারই দ্বিতীয় ডোজটি নিতে হবে। আপনি Moderna টিকা পেলে, প্রথম ডোজ নেওয়ার 28 থেকে 42 দিন পরে আপনার Moderna টিকারই দ্বিতীয় ডোজটি নিতে হবে। নির্ধারিত সময়ের আগে দ্বিতীয় ডোজ না নেওয়ারই পরামর্শ দেওয়া হয়।

প্রস্তাবিত সময়কালের মধ্যে আপনি আপনার দ্বিতীয় ইঞ্জেকশনটি নিতে না পারলে, তারপরে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেটি নিয়ে নিন। যত সময়ই চলে যাক না কেন, আপনার তবুও দ্বিতীয় ইঞ্জেকশনটি নেওয়া উচিত। আপনি প্রস্তাবিত সময়কালের পরে আপনার দ্বিতীয় ইঞ্জেকশনটি নিলেও, আপনাকে মোটের উপর শুধুমাত্র দুটি ইঞ্জেকশন নিতে হবে।

নিউ ইয়র্ক স্টেটের পক্ষ থেকে সবার জন্য প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ একই স্থান থেকে নেয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

টিকাদান কার্ড

প্রথম ডোজ গ্রহণের পর, আপনাকে আপনার নাম, জন্মতারিখ, আপনাকে যে টিকাটি দেয়া হয়েছে সেটি, এবং গ্রহণের তারিখ ও স্থানের নামসহ একটি কার্ড দেয়া হবে। আপনার টিকাদান কার্ডটি একটি গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসাগত রেকর্ড। এটিকে নিরাপদ স্থানে রাখুন এবং যদি কখনও হারিয়ে যায় তাহলে ব্যবহারের জন্য একটি ফটোকপি করে রাখুন বা ছবি তুলে রাখুন।

দ্বিতীয় ইঞ্জেকশনটি নিতে যাওয়ার সময় আপনার সাথে ওই কার্ডটি রাখুন। যদি আপনি কার্ডটি আনতে ভুলে যান বা হারিয়ে ফেলেন, তাহলেও আপনি টিকা নিতে পারবেন। টিকা প্রদানকারী কম্পিউটারে আপনার নাম খুঁজে বের করে নিশ্চিত হয়ে নিতে পারবেন যে আপনি প্রথম টিকাটি নিয়েছিলেন কিনা।

যদি আপনি আপনার কার্ড হারিয়ে ফেলেন, আপনি "Citywide Immunization Registry" (শহরব্যাপী টিকাকরণ নিবন্ধন) থেকে আপনার টিকা গ্রহনের প্রমাণ সংগ্রহ করতে পারবেন। এই নিবন্ধন ব্যবস্থায় NYC তে যারা টিকা নিয়েছেন তাদের রেকর্ড, এবং কিছু NYC বাসিন্দা যারা শহরের বাইরে টিকা নিয়েছেন তাদের রেকর্ড আছে।

যদি আপনার একটি IDNYC কার্ড থাকে, আপনি "My Vaccine Record" (আমার টিকা রেকর্ড) ওয়েবসাইট থেকে আপনার নিজের টিকার রেকর্ড (এবং আপনার অপ্রাপ্তবয়স্ক সন্তানদের রেকর্ড) অ্যাক্সেস করতে পারবেন। আপনার যদি IDNYC কার্ড না থাকে, আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর পক্ষে আপনার রেকর্ড অ্যাক্সেস করা এবং কাগজপত্র আপনার জন্য প্রিন্ট করে দেয়া সম্ভব।

সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াসমূহ

বেশিরভাগ ব্যক্তির টিকাগুলো থেকে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে বলে জানা গেছে, যা সাধারণত আপনার শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলার লক্ষণ। সাধারণ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলি হল হাতের যেখানে আপনার টিকা দেওয়া হয়েছে সেখানে ব্যাথা বা ফুলে যাওয়া, মাথাব্যাথা, শরীরে ব্যাথা, ক্লান্তি এবং জ্বর। প্রথমবারের টিকা নেওয়ার পরে আপনার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হলেও দ্বিতীয় টিকাটি নিন, যদি না আপনার স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী আপনাকে বারণ করেন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াসমূহ:

  • সাধারণত হালকা থেকে মাঝারি
  • সাধারণত টিকা গ্রহণের প্রথম তিন দিনের মধ্যেই দেখা দেয় (সবচেয়ে বেশি দেখা যায় টিকা গ্রহনের পরের দিন) এবং শুরু হওয়ার পর এক থেকে দুই দিন পর্যন্ত স্থায়ী থাকে।
  • দ্বিতীয় ডোজের পরে সাধারণত বেশি দেখা যায়
  • বয়স্কদের ক্ষেত্রে কিছুটা কম থাকে

কিছু লক্ষণ, যেমন কাশি, নিঃশ্বাস নিতে অসুবিধা হওয়া, গলা ব্যথা হওয়া এবং স্বাদের অনুভূতি হারিয়ে ফেলা, টিকার প্রতিক্রিয়া নয়। এই লক্ষণগুলোর অর্থ হচ্ছে আপনি টিকা গ্রহণ করার আগে বা গ্রহণের পরপরই COVID-19 বা অন্য কোনো সংক্রমণের শিকার হয়েছেন। যদি আপনার এই লক্ষণগুলোর কোনোটি দেখা দেয়, আপনার উচিত হবে COVID-19 এর জন্য পরীক্ষা করানো, কাজ ও স্কুলের জন্য বাড়িতে থাকা, নিজের স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রাখা এবং প্রয়োজন হলে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করা।

এই টিকা থেকে আপনার COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়া অসম্ভব।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলোর জন্য করণীয়

ইনজেকশনের স্থানে ব্যথা বা ফোলা ভাব কমানোর জন্য, একটি পরিষ্কার, ঠাণ্ডা, ভেজা কাপড় দিয়ে জায়গাটি ঢেকে রাখুন এবং আপনার হাতটি ব্যবহার করুন বা ব্যায়াম করান। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জন্য আপনার উদ্বেগ হলে বা বেশ কয়েকদিন পরেও তা না কমলে, বা 24 ঘণ্টা পরে, যেখানে টিকা নিয়েছেন সেই জায়গার লাল হয়ে যাওয়া বাড়লে বা ব্যথা বাড়লে আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীকে ফোন করুন।

ব্যাথা বা অস্বস্তি নিরসনে অ্যাসিটামিনোফেন (টাইলেনল) বা আইবুপ্রোফেন (অ্যাডভিল) এর মতো একটি ওভার দ্য কাউন্টার ওষুধ খাওয়ার ব্যাপারেও আপনি আপনার স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে কথা বলতে পারেন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা জানানো

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলোর কথা জানালে তা জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পক্ষে সহায়ক হবে কারণ তারা টিকাটির প্রতিক্রিয়াগুলো মনিটর করতে পারবেন। এটি বিশেষ করে একটি নতুন টিকার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আপনি CDC এর V-safe স্মার্টফোন অ্যাপের সাহায্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা জানাতে পারেন। তাছাড়া আপনি অনলাইনেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা CDC এবং FDA এর টিকাজনিত প্রতিকূল পরিস্থিতি রিপোর্টিং সিস্টেম (VAERS) এ অথবা 800-822-7967 এ ফোন করে জানাতে পারেন।

এলার্জিজনিত প্রতিক্রিয়ার সম্ভাবনা খুবই কম

এখনও পর্যন্ত আমরা যা জানি সেই অনুযায়ী, টিকার এলার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া হয় খুবই কম ক্ষেত্রে।

এলার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া সাধারণত টিকাটি নেওয়ার কয়েক মিনিট থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে শুরু হয়। গুরুতর এলার্জিজনিত প্রতিক্রিয়ার লক্ষণের মধ্যে থাকতে পারে শ্বাসকষ্ট, মুখ ও গলা ফুলে যাওয়া, হৃদস্পন্দন দ্রুত হওয়া, সারা শরীরে খারাপভাবে চুলকানি, মাথা ঘোরা এবং দুর্বলতা।

আপনার গুরুতর এলার্জিজনিত প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে বলে মনে হলে 911 নম্বরে ফোন করুন অথবা নিকটস্থ হাসপাতালে চলে যান।


টিকাদানের পরে

টিকার সুরক্ষা কখন শুরু হবে

প্রথম ডোজটি নেওয়ার পরে আপনি কিছুটা সুরক্ষা পেলেও, দুটি ডোজের পরে টিকাগুলো আরো বেশি কার্যকর হবে। আপনার দ্বিতীয় ডোজের পর এক থেকে দুই সপ্তাহ না যাওয়া পর্যন্ত আপনি টিকার সম্পূর্ণ সুরক্ষা পাবেন না।

COVID-19 পরীক্ষার ফলাফলসমূহ

এই টিকার কারণে মানুষের দেহে COVID-19 সনাক্তকরণ (ভাইরাল) পরীক্ষায় পজিটিভ আসার সম্ভাবনা নেই। তবে, এই টিকার কারণে আপনার অ্যান্টিবডি পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসা সম্ভব, যেহেতু এই টিকার কার্যপদ্ধতির একটি অংশ হচ্ছে আপনার দেহকে COVID-19 সৃষ্টিকারী ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে শেখানো।

পূর্বসতর্কতা অবলম্বন করতে থাকুন

COVID-19 এর উপর এই টিকাগুলোর প্রভাব সম্পর্কে যতক্ষণ আমরা আরো ভালভাবে না জানছি এবং যতক্ষণ আরো বেশি সংখ্যক মানুষ টিকা না নিচ্ছে ততক্ষণ আমাদের সাবধানতা অবলম্বন করা চালিয়ে যেতে হবে। যেমন, এমনকি টিকা নেয়ার পরেও আপনাকে অবশ্যই প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপসমূহ চালিয়ে যেতে হবে:

  • আপনি অসুস্থ হলে অথবা COVID-19 এর পরীক্ষায় সাম্প্রতিক সময়ে পজিটিভ আসলে বাড়িতে থাকুন।
  • অন্যদের থেকে অন্তত 6 ফিট দূরত্বে থাকুন।
  • মুখে একটি আবরণ পরুন।
  • প্রায়ই আপনার হাত ধুন।

চিকিৎসাগত ও ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা

আপনার ব্যক্তিগত তথ্য কঠোরভাবে সুরক্ষিত রাখা হবে। আপনার সম্পর্কে সাধারণ তথ্যসমূহ (যেমন আপনার নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, জন্মতারিখ, টিকাদানের তারিখ এবং প্রাপ্ত টিকার নাম) আইন অনুযায়ী NYC স্বাস্থ্য দপ্তরকে জানানো হবে, কিন্তু আপনার তথ্য যেন গোপন থাকে তা নিশ্চিত করতে কঠোর আইন বলবত রয়েছে। আপনার সোশাল সিকিউরিটি নম্বর, এবং আপনার অভিবাসন অবস্থা সংগ্রহ করা হবে না বা কাউকে জানানো হবে না।

NYC স্বাস্থ্য দপ্তর টিকাদান সংক্রান্ত তথ্য CDC এর কাছে পাঠাতে বাধ্য। কেবলমাত্র ব্যক্তিদের জন্মতারিখ, জিপ কোড, বর্ণ, গোষ্ঠী ও লিঙ্গ CDC কে জানানো হয়। আমরা আপনার নামসহ, অন্য কোনো ব্যক্তিগত-সনাক্তকারী তথ্য জানাব না।


টিকাকরণের বাধ্যবাধকতাসমূহ

সরকার ও চাকরিদাতাগণ

COVID-19 এর বিরুদ্ধে টিকা নেয়ার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

চাকরিদাতাগণ টিকাকরণ সম্পর্কে কী বাধ্যতামূলক করতে পারেন আমরা জানি না।

স্কুলসমূহ

টিকাসমূহ বর্তমানে শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত নয় (তবে Pfizer টিকাটি 16 বছর এবং তার উর্ধ্ববয়সী শিশুদের দেয়া যেতে পারে), তাই এগুলো স্কুলে বাধ্যতামূলক করা যাবে না। টিকাগুলো যদি শিশুদের দেয়ার জন্য অনুমোদিত হয় তাহলে স্কুলে উপস্থিত হওয়ার জন্য কোন ব্যাপারগুলোর প্রয়োজন হবে আমরা এখনও জানি না।

অতিরিক্ত সংস্থানসমূহ